আমাদের সর্ম্পকে

১। মসলা তৈরির ইতিহাসঃ শান্তি শান্তি বাংলাদেশ ঢাকায় একজন বিহার মহাদয়ের ফরমালা অনুযায়ী + মালেএশিয়া + জাপান ৩ দেশের মসলা মিলন ঘটক এস শাহ কে মসলা তৈরি করা হয়। খিচুড়ি, গোস, মাছ, ডাউল, যে কোন তরকারী রান্নায় আর কোন মসলা অংশ না। যে কোন রান্নার প্রভাব দিতে এস শাহী গুড়া মিসলার তুলনা নেই।

২। রান্নায় মসলার ব্যবহার নিয়মঃ খিচুড়ি (চাউল + ডাউল + মাংশ) মাংশ, মাছ, ডাউল, ইত্যাদি কেজি প্রতি ১৫ গ্রাম। এবং অন্যান্য তারতে কেজি প্রতি ০৮ গ্রাম।

৩। উপাদানঃ দেশের সেরা জাতের হলুদ, মরিচ, ধনিয়া, জিরা, ইলাজ , দারুচিনি, জয়ত্রী, জায়ফল, এবং ৩০ শ্রেনীর সকল প্রকার দ্রব্য হতে প্রস্তকৃত।

৪। ভোটঃপাফনের তারিখ হতে হতে ৫ এর মধ্যে মসলার অংশ, গন্ধ, গুনাগুণ খোলা থাকে।

৫। কেন আপনি রান্নার জন্য এস কে শাহী মসলা করবেনঃ বিবাহ, মিলাদ মাহাফিল ইফতারী, হোটেল, বাসা বাড়িতে, খিচুড়ি, গোস, উউল, সবজি সহ কোন রান্নার ব্যবহার ক্ষমতা দিতে এস কে শাহ মসলার তুলনা নাই। রান্নার একক মসলা হিসাবে গণক এস কে শাহী মসলা তুলনা নাই।

শর্তাবলীঃ যে কোন রান্নায় মসলা হিসাবে এস কে শাহী গুড়া মসলার সাথে আর কোন মসলা দেওয়া যাবে না।

পরিচালক- মাও: মো: সাইফুর রহমান